মাধ্যমিক ভূগোল দ্বিতীয় অধ্যায় ১ নম্বরের প্রশ্ন এবং উত্তর

মাধ্যমিক ভূগোল দ্বিতীয় অধ্যায় ১ নম্বরের প্রশ্ন এবং উত্তর

  1. পৃথিবীকে অতিবেগুনি রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে বাঁচায় –ওজোন স্তর।

  2. প্রানীকে অক্সিজেন ও উদ্ভিদকেকার্বন ডাইঅক্সাইড দেয় –বায়ুমন্ডল।

  3. পরিমাণ অনুসারে বায়ুমণ্ডলের দ্বিতীয় স্থানাধিকারী গ্যাস – অক্সিজেন।

  4. প্রধান নদী থেকে জল আহরণ করে, যে নদী পুষ্ট হয়— শাখানদী।

  5. পর্বত ও সমভূমির সংযােগ স্থলে পলল শঙ্কু গড়ে ওঠার কারণ হল – সঞ্চয়।

  6. একাধিক জলপ্রপাত একটি রেখা বরাবর উৎপন্ন হলে, ওই রেখাকে বলে –প্রপাতরেখা।

  7. গ্যাসের অনুপাত অনুসারে বায়ুমণ্ডলের সর্বোচ্চ স্তর হল – হেট্যারােস্ফিয়ার।

  8. গ্যাসের অনুপাত অনুসারে বায়ুমণ্ডলের সর্বনিম্ন স্তর – হােমোস্ফিয়ার।

  9. জেট বিমান বায়ুমণ্ডলের যে স্তর দিয়ে যাতায়াত করে, তার নাম – স্ট্র্যাটোস্ফিয়ার।

  10. যে প্রাকৃতিক চক্রটি না থাকলে পৃথিবীতে জলের জোগান থাকত – জলচক্র।

  11. যে স্তরকে ‘প্রাকৃতিক সৌরপর্দা’ বা ন্যাচারাল সানস্ক্রিন’ বলা হয় – ওজোন স্তর।

  12. যেসকল নদী প্রধান নদীতে জলের জোগান দেয়- উপনদী।

  13. অবলােহিত ও অতিবেগুনি রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে জীবমন্ডলকে রক্ষা করে –বায়ুমণ্ডল।

  14. আকাশকে নীল দেখায় কারণ – ধূলিকণা ।

  15. উল্কার আঘাত থেকে পৃথিবীকে রক্ষা করে- বায়ুমণ্ডল।

  16. দৈনিক আবহাওয়ার বৈশিষ্ট্য যেখানে পরিলক্ষিত হয়- ট্রোপোস্ফিয়ার ।

  17. নদী অববাহিকার প্রাথমিক বা প্রধান ঢাল বরাবর প্রবাহিত নদী হল- মূলনদী।

  18. নদী অববাহিকার সীমানা নির্ধারণ করে যে উচ্চভূমি—জলবিভাজিকা।

  19. নদী বাহিত পলি, বালি, কাকড়, শিলাচূর্ণকে এক কথায় বলে— বােঝা।

  20. নদী মােহানায় জোয়ারের জলে পুষ্ট অগভীর ও প্রশস্ত নদীখাতকে বলে –খাঁড়ি।

  21. নদী মােহানায় প্রশস্ত মহীসােপানের ওপর যে ভূমিরূপ গড়ে ওঠার সম্ভাবনা থাকে— বদ্বীপ।

  22. নদী মােহানায় ব্যজনী আকৃতির সঞ্চয়জাত ভূমিরূপ হল— বদ্বীপ।

  23. নদী হল বারিচক্রের –  অনুভূমিক অংশ।

  24. নদী, উপনদী বিধৌত অঞ্চল হল – নদী অববাহিকা।

  25. নদীবক্ষে সৃষ্ট গােলাকৃতি গর্তকে বলে –  মন্থকূপ।

  26. নদীর মধ্য ও নিম্নগতিতে উদ্ভূত বৃহৎ সমভূমিকে বলে—  প্লাবনভূমি।

  27. পার্বত্য এলাকার মধ্য দিয়ে নদী প্রবাহিত হলে সেটি ওই নদীর –উচ্চগতি।

  28. প্রশস্ত নদী উপত্যকার মধ্যে প্রবাহিত সংকীর্ণ নদী – বেমানান নদী।

  29. বায়ুমণ্ডলে ওজোন গ্যাসের ঘনত্ব পরিমাপের একক – ডবসনএকক।

  30. বায়ুমণ্ডলে যে গ্যাসের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি –নাইট্রোজেন।

  31. বায়ুমণ্ডলে ভাসমান ধূলিকণাকে এরােসলবলে।

  32. বায়ুমণ্ডলের যে স্তরে ওজোন গ্যাসের ঘনত্ব সর্বাধিক, সেটি হল –স্ট্র্যাটোস্ফিয়ার।

  33. বায়ুমণ্ডলের সর্বনিম্ন স্তর হল—ট্রোপােস্ফিয়ার।

  34. বাষ্পীভবন ও অধঃক্ষেপণ হল জলচক্রের – উল্লম্ব অংশ।

  35. বিসর্পন হল একটি –পরিবহন পদ্ধতি।

  36. বদ্বীপের আকৃতি যে গ্রিক অক্ষরের মতাে –  ডেলটা।

  37. বৃষ্টিপাত ও তুষারপাতের কাজকে একত্রে বলে—অধঃক্ষেপণ।

  38. মাটির মধ্যে যে জল পাওয়া যায়, তাকে বলে— ভৌমজল।

  39. সৌরজগতের যে গ্রহে অক্সিজেন আছে – পৃথিবী।

  40. বায়ুর চাপ মাপার একক হল – মিলিবার।

  41. যে যন্ত্রের সাহায্যে বায়ুর চাপ মাপা হয়— ব্যারােমিটার।

  42. ব্যারােগ্রাফ যন্ত্রের সাহায্যেবায়ুরচাপমাপা যায়।

  43. সমচাপ রেখার সঙ্গে লম্ব বা আড়াআড়িভাবে অবস্থান করে –চাপঢাল।

  44. কর্কটীয় উচ্চচাপ ও মকরীয় উচচচাপ বলয়ের মধ্যে যে কক্ষটি অবস্থিত –হ্যাডলিকক্ষ।

  45. মধ্যঅক্ষাংশের উচচাপ ও মেরুবৃত্ত প্রদেশীয় নিম্নচাপ বলয়ের মধ্যেঅবস্থিতকক্ষটির নাম হল –ফেরেলকক্ষ।

  46. বায়ুচাপের হ্রাসের হারকে বলে—চাপঢাল।

  47. বায়ুর চাপ হল— বায়ুর ওজন ।

  48. উত্তর-পূর্ব আয়ন বায়ু ও দক্ষিণ-পূর্ব আয়ন বায়ুর মিলন এলাকাকে বলে -ITCZ।

  49. আয়ন বায়ু যে বায়ুপ্রবাহের অংশ – নিয়তবায়ু।

  50. উপক্ৰান্তীয় উচ্চচাপ বলয় থেকে মেরুবৃত্ত প্রদেশীয় নিম্নচাপ বলয়ের দিকেযে বায়ু সারাবছর প্রবাহিত হয়— পশ্চিমাবায়ু।

  51. দিনের বেলা যে বায়ু প্রবাহিত হয়—শীতল সমুদ্রবায়ু।

  52. বায়ুপ্রবাহের দিক নির্ণয়ের যন্ত্রের নাম হল – বাতপতাকা।

  53. বায়ুর গতিবেগ যে এককে প্রকাশ করা হয় – নট।

  54. বায়ুর গতিবেগ পরিমাপক যন্ত্রটি যে নামে পরিচিত -অ্যানিমােমিটার।

  55. বায়ুর শক্তির মাত্রা যে স্কেলের সাহায্যে প্রকাশ করা হয়, তা হল – বিউফোর্টস্কেল।

  56. বরফ-খাদক বা স্নো-ইটারবলতে চিনুক বায়ুকে বােঝায় ।

  57. শীতকালেআল্পসথেকেদক্ষিণফ্রান্সেরদিকেপ্রবাহিতশীতলশুষ্কবায়ুটিরনাম- মিস্ট্রাল।

  58. বায়ুমণ্ডলে নাইট্রোজেনের পরিমাণ শতকরা –78.08 ভাগ।

  59. বায়ুমণ্ডলের উর্ধ্বসীমা হল ভূপৃষ্ট থেকে প্রায় –10 হাজার কিলােমিটার।

  60. সমুদ্রপৃষ্ঠে বায়ুর চাপ প্রতি বর্গ সেন্টিমিটারে – 1 কিলােগ্রাম।

  61. বায়ুমণ্ডলে অক্সিজেনের পরিমাণ প্রায় –20.94%।

  62. 45° অক্ষাংশে সমুদ্রপৃষ্ঠে প্রাপ্ত বায়ুর চাপকে ভূপৃষ্ঠের গড় চাপ ধরা হয় ।

  63. 25° উত্তর থেকে 35° উত্তর অক্ষাংশের মধ্যে অবস্থিত অঞ্চলকেবলে –অশ্ব অক্ষাংশ।

File Details –

PDF Name / Book Name মাধ্যমিক ভূগোল দ্বিতীয় অধ্যায় ১ নম্বরের প্রশ্ন এবং উত্তর 
Language : Bengali
Size : 376 kB
Download Link : Click Hereto Download

 

Leave a Comment