নদীর ক্ষয়কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপগুলি বর্ণনা । অথবা, উচ্চগতিতে নদীর কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপগুলি বর্ণনা করাে।

 নদীর ক্ষয়কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপগুলি বর্ণনা । অথবা, উচ্চগতিতে নদীর কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপগুলি বর্ণনা করাে।

উচ্চগতি বা পার্বত্য প্রবাহে নদী প্রধানত ক্ষয়কাজ করে। দীর ক্ষয়কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপগুলি  হল


 নদীর ক্ষয়কাজের ফলে সৃষ্ট ভূমিরূপ

ইংরেজি ‘I’ আকৃতির উপত্যকা : পার্বত্য প্রবাহে নদীর উপনদীর সংখ্যা কম থাকে, ফলে নদী সরু হয়। অন্যদিকে, নদীতে প্রচণ্ড স্রোত থাকায় বাহিত শিলাখণ্ডের অবঘর্ষ দ্বারা উপত্যকার নিম্নদিক গভীর হয়ে যায়। এরকম উপত্যকার আকৃতি ইংরেজি I” অক্ষরের মতাে হয়।

‘y’ আকৃতির নদী উপত্যকা : ‘I’ আকৃতির নদীউপত্যকার দু-পাশ আর্দ্র অঞ্চলে বৃষ্টির জল প্রভৃতির দ্বারা পার্শ্বক্ষয়ের ফলে ‘v’ আকৃতির উপত্যকায় পরিণত হয়।

 গিরিখাত ও ক্যানিয়ন : ‘v’ আকৃতির উপত্যকা খুব গভীর ও সংকীর্ণ হলে তাকে বলে গিরিখাত। শুষ্ক অঞ্চলে গঠিতগভীর I আকৃতির উপত্যকাকে বলে ক্যানিয়ন

 জলপ্রপাত : নদীর পাবত্য গতিপথে কোমল ও কঠিন শিলা উল্লম্ববা অনুভূমিকভাবে পরপর থাকলে, নদী নরম পাথরকে বেশি ক্ষয় করে। ফলে শক্ত ও নরম পাথরের মধ্যে ধাপের সৃষ্টি হয়। নদী উপর থেকে নীচের ধাপে সজোরে আছড়ে পড়ে, একে জলপ্রপাত বলে  এ ছাড়াও নদীর উচ্চগতিতে ক্ষয়কাজের ফলে খরস্রোত, মথকূপ, আবদ্ধ শৈলশিরা প্রভৃতি সৃষ্টি হয়।

 

Leave a Comment