পৃথিবীর সংক্রান্ত তথ্য//General Knowledge// একনজরে মহাকাশের পথে//At a glance on the way to space//মহাকাশ পরিক্রমা বিষয়ে কিছু তথ্য//মহাকাশ বর্জমা সম্পর্কে কিছু তথ্য//বিভিন্ন দেশের ভৌগোলিক বিবরণ//Geographical description of different countries

প্রশ্ন

উত্তর

পৃথিবী সৌরজগতের কততম গ্রহ ?

 

আয়তনের হিসাবে পৃথিবী সৌরজগতের পঞ্চম বৃহত্তম গ্রহ এবং সূর্য থেকে দূরত্ব অনুযায়ী পৃথিবী তৃতীয় স্থানে অবস্থিত।

পৃথিবীর ওজন কত ?

আনুমানিক ওজন ৫৬৯৭ X ১০১৮ কোটি টন।

পৃথিবীর ক্ষেত্রফল কত?

৫১ কোটি ৫৪ লক্ষ বর্গ কিলােমিটার।

পৃথিবীর গড় ব্যাস কত ?

পৃথিবীর গড় ব্যাস ১২,৮০০ কিলােমিটার। পৃথিবীর গড় ব্যাসার্ধ কত ? পৃথিবীর গড় ব্যাসার্ধ প্রায় ৬৪০০ কিলােমিটার।

পৃথিবীর গড় পরিধি কত ?

পৃথিবীর গড় পরিধি ৪০,০০০ কিলােমিটার।

পৃথিবীর নিরক্ষীয় ব্যাস কত ?

পৃথিবীর নিরক্ষীয় ব্যাস ১২,৭৫৭ কিলােমিটার।

পৃথিবীর মেরুব্যাস কত ?

পৃথিবীর মেরুব্যাস ১২,৭১৪ কিলােমিটার।

জিয়ড কী ?

পৃথিবীর প্রকৃত আকৃতি।

পৃথিবীর গতি কয় প্রকার ?

পৃথিবীর গতি দুই প্রকার। (১)আবর্তন গতি (২) পরিক্রমণ গতি।

পশ্চিম দিক থেকে পূর্ব দিকে আবর্তন করে। পৃথিবীর পরিক্রমণের বেগ কত ?

প্রতি সেকেন্ডে ৩০ কিলােমিটার। পৃথিবীর কোথায় আবর্তনের বেগ শূন্য ? • উত্তর ও দক্ষিণ মেরুতে আবর্তনের বেগ শূন্য।

পৃথিবীর কক্ষপথ কাকে বলে ?

যে উপবৃত্তাকার পথে পৃথিবী সূর্যকে পরিক্রমণ করে তাকে পৃথিবীর কক্ষপথ বলে।

পৃথিবীর আবর্তনের বেগ কোথায় সবচেয়ে বেশি কোথায়?

নিরক্ষীয় অঞ্চলে (ঘণ্টায় প্রায় ১৬৩০কিলােমিটার)।

পৃথিবী কক্ষপথের আকৃতি কীরূপ?

পৃথিবীর কক্ষপথের আকৃতি উপবৃত্তাকারI

পৃথিবীর কক্ষপথের দৈর্ঘ্য কত ?

৯৬ কোটি কিমি।

আমরা কোন শক্তির জন্য পৃথিবী থেকে ছিটকে যাই না ?

মাধ্যাকর্ষণ শক্তির জন্য আমরা পৃথিবী থেকে ছিটকে যাই না।

পৃথিবী অক্ষ কি?

পৃথিবীর উত্তর মেরু বিন্দু ও দক্ষিণ মেরু বিন্দু সংযোগকারী কাল্পনিক রেখা কে পৃথিবীর অক্ষ বলেI

নিজের অক্ষের চারিদিকে একবার আবর্তনে পৃথিবীর কত সময় লাগে ?

২৩ ঘণ্টা ৫৬ মিনিট ৪ সেকেন্ড।

পৃথিবীর পরিক্রমণের সময় কত ?

৩৬৫ দিন ৫ ঘণ্টা ৪৮ মিনিট ৪৬ সেকেন্ড।

পৃথিবী অক্ষ তার কক্ষতলের সঙ্গে কত ডিগ্রি কোণে হেলে থাকে ?

৬৬°৩০’ কোণে হেলে থাকে।

পৃথিবী থেকে সূর্যের গড় দূরত্ব কত ?

পৃথিবী থেকে সূর্যের গড় দূরত্ব ১৫ কোটি কিমি।

 একনজরে মহাকাশের পথে//At a glance on the way to space

একনজরে মহাকাশের পথে//At a glance on the way to space

1. লুনা-১৩ কে কত খ্রিস্টাব্দে চাদের উদ্দেশ্যে পাঠনাো হয়?

উ:- ১৯৬৬ খ্রিস্টাব্দের ২৪ ডিসেম্বর রাশিয়া থেকে লুনা ১৩-কে চাঁদের উদ্দেশ্যে পাঠানাো হয়।

2. মহাকাশযানে কোন্ প্রাণীকে পাঠানাো হয়েছিল?

উ:- ১৯৫৮ খ্রিস্টাব্দের ৩ নভেম্বর রাশিয়া মহাশূন্যে একটি উপগ্রহ পাঠিয়েছিল, তাতে ছিল ‘লাইকা’ নামে একটি অভিজ্ঞ কুকুর। এটি অবশ্য মৃত অবস্থায় ফিরে আসে। ।

3. লুনা খাোদ কী ?

উ:- ১৯৭০ খ্রিস্টাব্দের ১৭ নভেম্বর রাশিয়া একটি স্বয়ংক্রিয় যান চাদে পাঠায়। সেটির নাম ছিল লুনা খাোদ।

4. কত খ্রিস্টাব্দে মেরিনার ৯-কে মঙ্গল গ্রহের উদ্দেশ্যে পাঠানাো হয় ?

উ:- ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দের ৩০ মে আমেরিকা থেকে পাঠানাো হয়।

5. কত খ্রিস্টাব্দে মেরিনার ১-কে বুধ গ্রহের উদ্দেশ্যে পাঠানাো হয়?

উ:- ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দের ৩০ মে আমেরিকা থেকে পাঠানাো হয়।

6. রাশিয়ার যে রকেট মঙ্গল গ্রহে নেমেছিল সেটির নাম কী ছিল?

উ:- মার্স

7. প্রথম মানুষ মহাকাশচারী কে?

উ:- ভাোস্তক-১’ নামক মহাকাশযানটিতে চড়ে যিনি ১৯৬১ খ্রিস্টাব্দের ১২ এপ্রিল তারিখে মহাকাশ পাড়ি দেন তিনি রাশিয়ার ইউরি গ্যাগারিন।

8. পৃথিবীর প্রথম মহিলা নভঃচারিণীর নাম কী ?

উ:- ভ্যালেন্টিনা তেরেসকোভা, ১৯৬৩ খ্রিস্টাব্দের ১৬ জুন ইনি রাশিয়া থেকে মহাকাশ পরিক্রমার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন।

 মহাকাশ পরিক্রমা বিষয়ে কিছু তথ্য//মহাকাশ বর্জমা সম্পর্কে কিছু তথ্য

মহাকাশ পরিক্রমা বিষয়ে কিছু তথ্য//মহাকাশ বর্জমা সম্পর্কে কিছু তথ্য   

কৃত্রিম :- উপগ্রহ ও বিভিন্ন গ্রহের চারদিকে পরিক্রমা করে সেইসব গ্রহগুলাো সম্পর্কে নানা তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করার জন্য মানুষের তৈরি উপগ্রহকে কৃত্রিম উপগ্রহ বলা হয়। এই ব্যাপারে সর্বপ্রথম যাোগ্য ভূমিকা গ্রহণ করে সাোভিয়েত রাশিয়া। ১.৯৫৭ খ্রিস্টাব্দের ৪ অক্টোবর সাোভিয়েত রাশিয়া বিশেষ ধরনের রকেটের সাহায্যে একটি কৃত্রিম উপগ্রহকে প্রথমে আকাশে পাঠাতে সক্ষম হয়েছিল। ১৯৯৬ খ্রিস্টাব্দের ২৪ ডিসেম্বর রাশিয়া থেকে স্বয়ংক্রিয় মহাকাশযান লুনা-১৩-কে চাদের উদ্দেশে পাঠানাো হয়। চাভিযানের এটাই ছিল প্রথম পদক্ষেপ। কিন্তু ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দের ২১ জুলাই চাদের বুকে প্রথম অবতরণ করেন মার্কিন মহাকাশচারী নীল আর্মস্ট্রং। এই যাত্রায় তার দুজন সহযাত্রী ছিলেন এডুইন অলড্রিন এবং মাইকেল কলিন্স। এরা আমেরিকার কেপ কেনেডি থেকে অ্যাপালো ১১-তে চড়ে চাদের উদ্দেশ্যে পাড়ি (দন। এরা পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য চাদের মাটি ও পাথর নিয়ে পৃথিবীতে ফিরে আসেন। এটির নাম লুনা খাোদ। এটি ছিল একটি ছাোটো আট চাকার স্বয়ংক্রিয় যান। এটিতে ফোটো তুলে পাঠাবার শক্তিশালী ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি ছিল। ১৯১৭ খ্রিস্টাব্দের ৩ মে আমেরিকা মেরিনার-৯ মঙ্গল গ্রহের উদ্দেশ্যে পাঠায়। ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দের ৩ নভেম্বর আমেরিকা মেরিনার ১০ নামে একটি উপগ্রহরে বুধের উদেশ্যে পাঠায়। এটিও বুধ গ্রহের অনেক তথ্যাদি পৃথিবীতে পাঠায়। ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দের ৩১ জানুয়ারি আমেরিকা অ্যালান শেপার্ড, এডগার মিচেল ও স্টুয়ার্ট রুসাকে অ্যাপাোলাো-১৪তে করে চাদের উদ্দেশ্যে পাঠায়। এঁরা চাদের মরু প্রান্তরে তথ্যানুসন্ধান চালান এবং বিভিন্ন ধরনের পাথরের নমুনা সংগ্রহ করেন। তারপর আমেরিকা অ্যাপাোলাো-১৫, অ্যাপাোলাো-১৬ এবং অ্যাপাোলাো-১৭-কে চাদের উদ্দেশ্যে পাঠায়। এর প্রতিটি অভিযানেই মানুষ ছিল। বৃহস্পতি গ্রহ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করার ৩ন্য ১৯৭২ খ্রিস্টাব্দের ৩ মার্চ আমেরিকা পাইওনিয়ার-১০ নামক একটি । উপগ্রহ প্রেরণ করে। এতে অবশ্য কোনাো অভিযাত্রী ছিল না। পাইওনিয়ার-১০ বৃহস্পতি অ্যাপাোলাো-১৬ গ্রহ সম্পর্কে নানা তথ্যাদি পাঠায়। শনি গ্রহ সম্পর্কে তথ্যাদি পৃথিবীতে সংগ্রহ করার জন্যে আমেরিকা পাইওনিয়ার-১১ নামক একটি উপগ্রহকে ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দের ৬ এপ্রিল আকাশে পাঠায়। সেটি ১৯৭৯ খ্রিস্টাব্দের ১ সেপ্টেম্বর (থকে শনির বলয়ের সন্ধান দিয়েছে। মঙ্গল গ্রহে প্রাণের অস্তিত্ব আছে কি না তা অনুসন্ধান করার জন্য আমেরিকা মহাকাশযানটিকে প্রথম প্রেরণ করেছিল, তার নাম ভাইকিং-১ই। ১৯৯৬ খ্রিস্টাব্দের ১৯ জুন মহাকাশযানটি মঙ্গলগ্রহের কক্ষপথে প্রবেশ করে। এই যানটির পাথফাইন্ডার অংশে ছিল নানা বৈজ্ঞানিক যন্ত্রাদি। পাথফাইন্ডার টেলিভিশনের সাহায্যে মঙ্গল গ্রহের নানা ছবি তুলে সরাসরি পৃথিবীতে পাঠায়। ১৯৯৭ খ্রিস্টাব্দেও আমেরিকা অনুরুপ একটি উপগ্রহ মঙ্গল গ্রহে পাঠিয়েছিল। যেটি আরও বেশি তথ্যাদি পাঠাতে সক্ষম হয়েছিল। ২০১২ সালের ৬ আগস্ট নাসার মহাকাশযান কিউরিসিটি (রাডার) মঙ্গল গ্রহে অবতরণ করে।

বিভিন্ন দেশের ভৌগোলিক বিবরণ//Geographical description of different countries

বিভিন্ন দেশের ভৌগোলিক বিবরণ//Geographical description of different countries

ভৌগলিক উপাধি

দেশের নাম

1. পৃথিবীর চিনির পাত্র

কিউবা

2. সোনালি পশমের দেশ

অস্ট্রেলিয়া

3. ইউরোপের ককপিট

বেলজিয়াম

4. হাজার হদের দেশ

ফিল্যান্ড

5. ইউরোপের ক্রীড়াভূমি

সুইজারল্যান্ড

6. নিশীথ সূর্যের দেশ

নরওয়ে

7. ভূমধ্যসাগরের চাবি

জিব্রাল্টার প্রণালী

8.  সূর্যোদয়ের দেশ

জাপান

9. চিনের দুঃখ

হোয়াংহো নদী

10. শ্বেত হস্তীর দেশ

থাইল্যান্ড

11. পৃথিবীর ছাদ

পামির মালভূমি

12. মরুভূমির মহাদেশ

আফ্রিকা

13. নীলনদের দান

মিশর লাসা

14. নিষিদ্ধ শহর

(তিব্বত)

15. পোপের শহর

রোম

 

  

Leave a Comment