Class 8 Model Activity Task Geography September) Part 6 Question & Answers

Class 8 Model Activity Task Geography September) Part 6 Question & Answers // মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক অষ্টম শ্রেণি ভূগোল পার্ট-৬ সেপ্টেম্বর (All subject September Model Activity Task Class -8

Class 8 Model Activity Task Geography September) Part 6 Question & Answers

১. বিকল্পগুলি থেকে ঠিক উত্তরটি নির্বাচন করে লেখো : 

১.১ ঠিক জোড়টি নির্বাচন করো – 

উ:- গ) মেরু অঞ্চল- বায়ুর উচ্চচাপ

 

১.২ উত্তর আমেরিকার আলাস্কা যে জলবায়ুর অন্তর্ভুক্ত তা হলো- 

উ:- ঘ) তুন্দ্রা জলবায়ু

 

১.৩ দক্ষিণ আমেরিকা লাপ্লাটা নদী অববাহিকায় অবস্থিত বিস্তীর্ণ তৃণভূমি হলো –

উ:- খ) পম্পাস

 

২. বাক্যটি সত্য হলে ‘ঠিক’ এবং অসত্য হলে ‘ভুল’ লেখো :

২.১ রাত্রিবেলা স্থলভাগ থেকে সমদ্রের দিকে সমুদ্রবায়ু প্রবাহিত হয় ।

উ:-   ভুল  

 

২.২ আপেক্ষিক আর্দ্রতার সাথে উষ্ণতার সম্পর্ক ব্যস্তানুপাতিক ।

উ:-   ঠিক  

 

২.৩ জুলাই-অগাস্ট মাসে আর্জেন্টিনায় গ্রীষ্মকালে বিরাজ করে । 

উ:-   ভুল  

৩. সংক্ষিপ্ত উত্তর দাও :

৩.১ সব মেঘ থেকে বৃষ্টি হয় না কেন ?  ২

উ:- বায়ুমন্দলে অবস্থিত জলীয়বাষ্প, ধূলিকণা প্রভৃতি একাধিক উপাদান ঘনীভূত হয়ে মিলিত হয়ে জলকণায় পরিণত হলে মেঘ সৃষ্টি হয়। মেঘের মধ্যে অবস্থিত জলকণায় ব্যাস ২ মিলিমিটারের বেশি না হলে মেঘ সৃষ্টি হলেও জলকণা বৃষ্টিপাত রূপে ঝরতে পারে না। বায়ুমণ্ডলের মধ্যে আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ ১০০% না হলে জলীয়বাষ্প সম্পূর্ণ রূপে ঘনীভূত হতে পারে না। তাই অনেক ক্ষেত্রে মেঘ করলেও বৃষ্টি সেরকম হয়না। যে সমস্ত মেঘ বায়ুমণ্ডলে বিখিপ্তভাবে অবস্থান করে সেই মেঘে জলকণা খুব সহজে একে অপরের সাথে ঘনীভূত হতে পারেনা। ফলে বৃষ্টিপাত হয়না বললেই চলে । 

৩.২ ‘আমাজন অববাহিকার ক্রান্তীয় বৃষ্টি অরণ্য দুর্গম প্রকৃতির’ – ভৌগোলিক কারণ ব্যাখ্যা করো ।  ৩

উ:- নিরক্ষীয় জলবায়ু অঞ্চলের অন্তর্গত আমাজন অববাহিকার ক্রান্তীয় বৃষ্টিঅরণ্য একাধিক ভৌগোলিক কারণে হয়ে উঠেছে দুর্গম প্রকৃতির- সূর্য সারাবছর লম্বভাবে কিরণ দেওয়ায় আমাজন অঞ্চলে অসহ্য উষ্ণ এক আবহাওয়া বিরাজ করে। সাথে সাথেই প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। ফলে এই অববাহিকার ক্রান্তীয় বৃষ্টি অরণ্য দুর্ভেদ্য এক গভীর অরণ্য হয়ে উঠেছে। এই অঞ্চলের বনভুমির গাছ অত্যন্ত ঘন চাঁদোয়ার মতো অবস্থান করায় মাটির নীচে ঠিকঠাক সূর্যালোক প্রবেশ করতে পারে না। ফলে স্যাঁতস্যাঁতে মাটিতে লতাপাতা, গভীর ঝোপঝাড়, বিষাক্ত কীটপতঙ্গ, জীবজন্তু, ছত্রাকের আধিক্য চোখে পড়ে। এছাড়া সারা বছর পরিচলন বৃষ্টিপাতের  কারণে বনভূমি জলমগ্ন থাকে। উল্লেখিত কারণ গুলির জন্য আমাজন অববাহিকার ক্রান্তীয় বৃষ্টি অরন্য দুর্গম এবং নিবিড়তম। 

৪. চিত্রসহ শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত সৃষ্টির প্রক্রিয়াটি বর্ণনা করো ।

উ:- ‘শৈল’ কথার অর্থ পর্বত আর ‘উৎক্ষেপ’ হলো ওপরে ওঠা । পর্বত দ্বারা বাধা পেয়ে বায়ু উৎক্ষিপ্ত হয়ে বৃষ্টিপাত হওয়ায় এই বৃষ্টির নামে শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত। 

সমুদ্রের দিক থেকে আসা জলীয়বাষ্পযুক্ত আর্দ্র বায়ুর প্রবাহ পথে আড়াআড়ি ভাবে কোনো পর্বত বা উচ্চভূমি অবস্থান করলে ঐ বায়ু পর্বত বা উচ্চভূমিতে বাধা পেয়ে ঐ পর্বত বা উচ্চভূমির ঢাল বেয়ে ওপরের দিকে উঠে যায়। ঊর্ধ্বগামী এই বায়ু ক্রমশ প্রসারিত হয় ও ঠাণ্ডা হয়। আরও ওপরে উঠলে এই বায়ু সম্পৃক্ত হয়ে পড়ে এবং ঘনীভূত হয়ে বৃষ্টিপাত ঘটায়। এই বৃষ্টি হল শৈলোৎক্ষেপ বৃষ্টিপাত পর্বতের যে ঢাল বরাবর বায়ু ওপরের দিকে ওঠে ও বৃষ্টিপাত ঘটায় সেই ঢাল হলো প্রতিবাত ঢাল। আর এর বিপরীত যে ঢাল বরাবর বায়ু নীচের দিকে নামে, সেই ঢাল হলো অনুবাত ঢাল। 

                 প্রতিবাত ঢাল প্রচুর বৃষ্টিপাত ঘটানোর পর বায়ু যখন পর্বতের অনুবাত ঢালে পৌঁছায় তখন সেই বায়ুতে জলীয়বাষ্পের পরিমাণ যথেষ্ট কমে যায়। এছাড়া বায়ু যত নীচের দিকে ঢালের উষ্ণতার স্থানে নামতে শুরু করে বায়ুর উষ্ণতা তত বাড়তে থাকে। ফলে বায়ুর জলীয়বাষ্প ধারণের ক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ায় বায়ু অসম্পৃক্ত হয়ে পড়ে। এই কারণে অনুবাত ঢাল প্রতিবাত ঢাল অপেক্ষা বৃষ্টিপাত খুবই কম হয়। তাই পর্বতের অনুবাত ঢাল বৃষ্টিপাত অঞ্চল নামে পরিচিত ।

 


Leave a Comment