অষ্টম শ্রেণি সপ্তম অধ্যায় মানুষের কার্যাবলী ও পরিবেশের অবনমন 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর ভূগোল

1. পরিবেশের অবনমন (Degradation of Environment) বলতে কী বোঝ ?  

Table of Contents

উ:- পরিবেশের অবনমন বলতে সামগ্রিকভাবে পরিবেশের নষ্ট হয়ে যায়। এই ঘটনাকে পরিবেশের অবনমন বলা হয়। যেমন— জীববৈচিত্র্য হ্রাস। গুণমান হ্রাস পাওয়ার ঘটনাকে বাোঝায়। প্রাকৃতিক কারণে ভূমিকম্প, ধস, অগ্ন্যুৎপাত ইত্যাদি ঘটলে এবং মানুষের অর্থনৈতিক কাজকর্ম, নগরায়ণ, শিল্পায়ন ইত্যাদি কারণে পরিবেশের গুণমানগুলি সামগ্রিকভাবে

2. পরিবেশদূষণ (Pollution of environment) বলতে কী বোঝ ?

উ:- পরিবেশের বিভিন্ন উপাদানের একক ভাবে গুণমান নষ্ট হওয়ার কারণে পরিবেশের ওপর যে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে, সেই ঘটনাকে পরিবেশদূষণ বলা হয়। যেমনজলে আর্সেনিকের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়ে জলদূষণ হয়।

3. হাোমিয়াোস্ট্যাটিক ব্যবস্থা (Homeostatic system) বলতে কী বোঝ ?

উ:- প্রাকৃতিক পরিবেশের বিভিন্ন ভৌত ও জৈব প্রক্রিয়াগুলি এমনভাবে কাজ করে, যাতে পরিবেশের কোনাো অংশে ক্ষতি বা পরিবর্তন হলে তা নিজে থেকেই পূরণ হয়ে যায়। একে হাোমিয়োস্ট্যাটিক ব্যবস্থা বলা হয়।

4. গ্রিনহাউস এফেক্ট (Greenhouse effect) কী ?

উ:- গ্রিনহাউসে যেমন তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায় তেমনই বাস্তবে সূর্যরশ্মি সহজেই ভূপৃষ্ঠে পতিত হয়। কিন্তু পৃথিবীপৃষ্ঠ থেকে প্রতিফলিত অবলোহিত রশ্মির তরঙ্গ দৈর্ঘ্য বেশি হওয়ার ফলে তা ওই স্তর ভেদ করে মহাশূন্যে আমাদের বাসভূমি পৃথিবীকেও একটি গ্রিনহাউস রূপে কল্পনা করতে পারি। যেখানে পৃথিবীর চারপাশের বায়ুমণ্ডলে মূলত ট্রপাোস্ফিয়ারে CO, জলীয় বাষ্প, ওজোন প্রভৃতি গ্যাসের যে-স্তর রয়েছে তা গ্রিনহাউসের কাচের মতাো ব্যবহার করে অর্থাৎ এই বায়ুস্তর ভেদ করে বিকিরিত হতে পারে না। ফলে বায়ুমণ্ডলের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের থেকে বৃদ্ধি পায়।

5. গ্লোবাল ওয়ার্মিং বা বিশ্ব উয়ায়ন (Global Warming) কাকে বলে ?

উ:- জুড়ে গ্রিনহাউস গ্যাস, যেমন- কার্বন 16°C হয়ে যায়।সারা বিশ্ব ডাইঅক্সাইড, মিথেন, ক্লোরো ফ্লুরো কার্বন, নাইট্রাস অক্সাইড, জলীয় বাষ্প ও ওজোন গ্যাসের পরিমাণ বৃদ্ধিজনিত কারণে পৃথিবীর গড় উষ্ণুতা অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই ঘটনাকেই বিশ্ব উন্নয়ন বলে।

i. উদাহরণ : 1990 খ্রিস্টাব্দে পৃথিবীর গড় তাপমাত্রা 15°C ছিল এবং তা 2000 খ্রিস্টাব্দের মধ্যে বেড়ে

6. অ্যাসিড বৃষ্টি (Acid rain) কী ?

উ:- বায়ুমণ্ডলে শিশির, তুষার ও বৃষ্টির জলের সঙ্গে মিশে বাতাসে ভাসমান হাইড্রোজেন ক্লোরাইড, নাইট্রিক অ্যাসিড ও সালফিউরিক অ্যাসিড প্রভৃতি রাসায়নিক পদার্থের অধঃক্ষেপণকে অ্যাসিড বৃষ্টি বলে। সাধারণ বৃষ্টির জলে অ্যাসিডের পরিমাণ বৃদ্ধি পেলেই অ্যাসিড বৃষ্টির ফলে উদ্ভিদ ও প্রাণীজগতের বৃষ্টি হয়। এই বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়।

7. পরিকল্পনার ফলে কীভাবে পরিবেশের ? অবনমন হতে পারে ?

উ:- যখন কোনাো নদীতে বাঁধ দিয়ে ওই নদীর জলকে বিভিন্ন কাজে, যেমন- জলসেচ, বিদ্যুৎ উৎপাদন, পানীয় জলের সরবরাহ ইত্যাদিতে ব্যবহার করা হয়, তখন তাকে বহুমুখী নদী পরিকল্পনা বলে। এর ফলে যে-জলাধার নির্মাণ করতে হয়, তা শিলাস্তরে চাপ দেয়, ফলে ভূমিকম্প ঘটতে পারে। জলাধার নির্মাণ ও বাঁধের কারণে যে যান্ত্রিক কার্য প্রক্রিয়া চলে তা জীববৈচিত্র্যকে নষ্ট করে দেয়। জলাধারের পিছনের অংশের নদীতে পলি জমার সম্ভাবনা বেড়ে যায়, ফলে নদীর নাব্যতা কমে যায় এবং অনেক সময় চাষের ক্ষতি করে।

8. পারমাণবিক দূষণ/তেজস্ক্রিয় দূষণের (Nrucleas Pollution) ধরনগুলি লেখাো ?

উ:- পারমাণবিক চুল্লির বর্জ্য পদার্থগুলি খাোলা জায়গায় স্কুপ করে রাখার ফলে বা মাটিতে পুঁতে দেওয়ার ফলে মৃত্তিকা ও জল দূষিত হয়। পারমাণবিক বাোমা পরীক্ষার ফলে বায়ুমণ্ডলে তেজস্ক্রিয়

9. পরিবেশ আন্দোলন (Environment Movement) কী ?

উ:- দেশের প্রগতির জন্য বিকাশমূলক কর্মকাণ্ডের আবশ্যকতা রয়েছে, তবে তা ধ্বংসাত্মক কখনাোই নয়। পরিবেশ তথা জীবমণ্ডলের ভারসাম্য বজায় রেখে বিকাশ বা উন্নয়ন ঘটানাোই যে-কোনাো দেশের প্রকৃত উদ্দেশ্য হওয়া উচিত। কিন্তু বর্তমানে উন্নয়নের পথে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই পরিবেশের ভারসাম্য নষ্ট করা হচ্ছে, ফলে আমরা তথা আমাদের বাসভূমি ক্রমশ ধ্বংসের পথে এগিয়ে চলেছে। অথচ মানুষ তথা জীবকুলের অস্তিত্ব সুন্দরভাবে পৃথিবীতে টিকিয়ে রাখতে দূষণমুক্ত পরিবেশের খুব প্রয়াোজন। তাই পরিবেশের এই অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে এবং পরিবেশ সংরক্ষণের দাবিতে আলিক, জাতীয় বা আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সর্বস্তরের মানুষের মিলিত সাোচ্চার ভাষা বা আন্দোলনই হল পরিবেশ আন্দোলন।

10. ভাোপাল গ্যাস দুর্ঘটনা (Bhopal gas disasters) কী ?

উ:- 1984 খ্রিস্টাব্দের 2-3 ডিসেম্বর মাসের মধ্যরাতে মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভাোপালে ইউনিয়ন কার্বাইড কোম্পানির কীটনাশক তৈরি করার কারখানায় মিক (MIC) গ্যাস ভরতি ট্যাংক ফুটো হয়ে বিষাক্ত MIC গ্যাস নির্গত হয়ে বাতাসে মেশে। এর ফলে শহর ও শহরতলি এলাকার বহু মানুষ মারা যায়।

11. চেনোবিল দুর্ঘটনা (Chernobil disasters) কী ?

উ:- 1986 খ্রিস্টাব্দের 26 এপ্রিল ইউক্রেনের চেনোবিল শহরে স্থাপিত পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে যান্ত্রিক ত্রুটি ও মানুষের অসাবধানতার ফলে যে-বিস্ফোরণ ও পরিবেশের বিপর্যয় ঘটে তাকেই চেনোবিল দুর্ঘটনা বলে। এর ফলে পরিবেশে তেজস্ক্রিয় পদার্থ মেশে ও বহু মানুষ মারা যায়।

12. চিপকো আন্দোলন ( CHIPKO MOVEMENT ) কী ?

উ:- 1973 খ্রিস্টাব্দে উত্তরা খণ্ডের গাড়োয়াল অঞ্চলের গোপেশ্বরের অধিবাসীরা অরণ্যকে রক্ষা করার জন্য এক অহিংস আন্দোলন শুরু করেছিল। এই আন্দোলন চিপকো আন্দোলন নামে পরিচিত। বন বিভাগের ঠিকাদারেরা গাছ কাটতে এলে অধিবাসীরা গাছকে জড়িয়ে ধরে গাছ কাটা বন্ধ করেছিল।‘চিপকো’ শব্দটি একটি হিন্দি শব্দ যার অর্থ ‘চিপক যাও’ বা ‘জড়িয়ে ধরো। সুন্দরলাল বহুগুনা ও চণ্ডীপ্রসাদ ভাটের নেতৃত্বে এই আন্দোলন হয়েছিল।

13. আর্থ সামিট বা বসুন্ধরা সম্মেলন (Earth Sammite) কী ?  

উ:- 1992 খ্রিস্টাব্দের জুন মাসে ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরাোতে আয়াোজিত পরিবেশ সংক্রান্ত রাষ্ট্রসংঘের আন্তর্জাতিক সম্মেলনকে বসুন্ধরা সম্মেলন বলা হয়। এই সম্মেলনের আলাোচিত বিষয়গুলি হল ভূমিক্ষয়, জলবায়ু নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত চুক্তি।

14. আর্সেনিক দূষণ বলতে কী বোঝ ?

উ:- ভৌমজল বা পানীয় জলে প্রতি লিটারে ধাতব আর্সেনিক 0.05 মিলিগ্রামের বেশি থাকলে তাকে আর্সেনিক দূষণ বলে। ভৌমজল অতিরিক্ত উত্তোলনের ফলে মৃত্তিকায় সৃষ্ট ফাঁকা স্তরে আর্সেনিক ও ক্লোরাইড বাতাসের সংস্পর্শে এসে বিষাক্ত আর্সেনিক ও আর্সেনাইটে পরিণত হয়। এবং জলে দ্রবীভূত হয়ে ভৌমজলকে দূষিত করে।

15. ব্ল্যাকফুট রাোগ কী ?

উ:- আর্সেনিকের বিষক্রিয়াজনিত কারণে পায়ের পাতায় হাতের তালুতে অস্বাভাবিক কালাো কালাো ছাোপ ছাোপ ঘা হয়ে যায়, একেই ব্ল্যাকফুট রাোগ বলে। ভারতের সুন্দরবন অঞ্চলে (দক্ষিণ চব্বিশ পরগনা) এর প্রভাব লক্ষ করা যায়।

16. তোমার বিদ্যালয়ের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখতে তাোমা গৃহীত তিনটি কর্মসূচি লেখ।

উ:- বিদ্যালয়ের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখতে গৃহীত তিনটি কর্মসূচি হল বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে কোনাো নাোংরা কাগজ, খাবারের প্যাকেট, খাবারের অবশিষ্টাংশ ফেলা চলবে না। অন্য শিক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষক-শিক্ষিকার তত্ত্বাবধানে বৃক্ষরাোপণ করতে হবে।

ভৌগোলিক কারণ ব্যাখ্যা করো

1. বনভূমিকে প্রাকৃতিক স্পঞ্জ বলা হয়। তার কারণ ব্যাখ্যা করো।

উ:- প্রাকৃতিক পরিবেশের সজীব উপাদানগুলির মধ্যে একমাত্র সবুজ উদ্ভিদ সালাোকসংশ্লেষ প্রক্রিয়ায় পরিবেশ থেকে কার্বন ডাইঅক্সাইড শোষণ করে প্রাণীজগতের জীবনধারণের জন্য একান্ত প্রয়াোজনীয় অক্সিজেন মুক্ত করে। স্পঞ্জ যেমন জল শাোষণ করে, সবুজ উদ্ভিদও তেমনই প্রকৃতি থেকে কার্বন ডাইঅক্সাইড শাোষণ করে। এইভাবে সবুজ উদ্ভিদ পরিবেশে CO, এর ভারসাম্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। সেই কারণে বনভূমিকে প্রাকৃতিক পঞ্জ বলা হয়।

2. ফুকুসিমা রাসায়নিক দুর্ঘটনা একটি গাফিলতিজনিত দুর্ঘটনা? ব্যাখ্যা করো?

উ:- 2011 খ্রিস্টাব্দের 11 মার্চ জাপানের টোকিয়াো শহরে যে-ভূমিকম্প হয়েছিল, তার প্রভাবে সৃষ্ট সুনামি-র আঘাতে ফুকুসিমার পারমাণবিক চুল্লিতে বিস্ফোরণ ঘটে। প্রায় ৪ লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং ফুকুসিমা ও তার পার্শ্ববর্তী অঞ্চল দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। উল্লেখ্য, তদন্ত কমিটির মতে জাপানিদের গাফিলতির জন্য এই পরমাণু দুর্ঘটনা ঘটেছিল। কারণ, ফুকুসিমার পারমাণবিক চুল্লিগুলি ভূমিকম্প ও সুনামি প্রতিরাোধক ছিল না।

ভূগোল

ইতিহাস

Leave a Comment