Class 4 Science Compilation Model Activity Task

Class 4 Science Compilation Model Activity Task

Table of Contents

১. ঠিক উত্তর নির্বাচন করাে :

১.১ কাঁটা আছে এমন উদ্ভিদের একটি উদাহরণ হলাে –

(ক) বট 

(খ) পলাশ 

(গ) ফণীমনসা

(ঘ) আম

১.২ উঁচু পাহাড়ে ওঠার সময় সিলিন্ডারে যে গ্যাস ভরে নিয়ে যাওয়া হয় সেটি হলাে –

(ক) নাইট্রোজেন 

(খ) অক্সিজেন

(গ) নিষ্ক্রিয় গ্যাস

(ঘ) কার্বন ডাইঅক্সাইড

১.৩ পৃথিবী থেকে হারিয়ে যাওয়া একটি প্রাণীর নাম হলাে –

(ক) গন্ডার 

(খ) ডােডাে 

(গ) কুমির 

(ঘ) হরিণ

১.৪ চাঁদ পৃথিবীর চারদিকে অনবরত ঘুরছে –

(ক) উত্তর থেকে দক্ষিণ দিকে 

(খ) দক্ষিণ থেকে উত্তর দিকে 

(গ) পূর্ব থেকে পশ্চিম দিকে

(ঘ) পশ্চিম থেকে পূর্ব দিকে

১.৫ ব্রোঞ্জ তৈরি করা হয় যে দুটি ধাতু মিশিয়ে সেগুলি হলাে –

(ক) লােহা আর টিন 

(খ) তামা আর টিন 

(গ) লােহা আর তামা

(ঘ) তামা আর সােনা

১.৬ টুসু পরব পালন করা হয় যে মাসে সেটি হলাে –

(ক) চৈত্র

(খ) বৈশাখ

(গ) শ্রাবণ 

(ঘ) পৌষ

২. শূন্যস্থান পূরণ করাে :

২.১ সাঁতার কাটার জন্য হাঁসের পায়ের আঙুলগুলাে ____জোড়া_______ ।

২.২ বাটখারা দিয়ে কোনাে জিনিসের ____ওজন_______ মাপা হয়।

২.৩ ____লালাগ্রন্থি_______ থেকে বেরােয় লালারস।

২.৪ পৃথিবীর _____উপগ্রহ______ হলাে চাঁদ।

Class 4 Science Compilation Model Activity Task

৩. ঠিক বাক্যের পাশে ‘’ আর ভুল বাক্যের পাশে ‘X’ চিহ্ন দাও :

৩.১ কেঁচোর শিরদাঁড়া আছে। 

উ:- ‘X’

৩.২ মানুষ প্রথমে কাঠ দিয়ে চাকা বানাত।

উ:- ‘

৩.৩ আদিম মানুষেরা কাঠকয়লা দিয়ে ছবি আঁকত। 

উ:- ‘

৪. বাম স্তম্ভের সঙ্গে ডান স্তম্ভের মিল করে লেখাে :

উ:- 

বাম স্তম্ভ

ডান স্তম্ভ

৪.১ মৃৎশিল্প

(গ) কৃষ্ণনগর

৪.২ ছৌ নাচ

(ক) পুরুলিয়া

৪.৩ সিল্কের শাড়ি

(ঘ) বিষ্ণুপুর

৫. একটি বাক্যে উত্তর দাও :

৫.১ ধ্রুবতারাকে আকাশের কোন দিকে দেখা যায়? 

উ:- ধ্রুবতারাকে আকাশের উত্তর দিকে দেখা যায় ।

৫.২ এমন একটা বর্জ্য পদার্থের নাম লেখাে যা সহজে মাটিতে মিশে যায় না।

উ:- প্লাস্টিক হলো এমন একটি বর্জ্য পদার্থ যা সহজে মাটিতে মিশে যায় না ।

৫.৩ পশ্চিমবঙ্গের কোথায় রেল ইঞ্জিন তৈরির কারখানা আছে? 

উ:- পশ্চিমবঙ্গের চিত্তরঞ্জন -এ রেল ইঞ্জিন তৈরির কারখানা আছে ।

৬. একটি বা দুটি বাক্যে উত্তর দাও :

৬.১ কী করে চাল থেকে ধানের খােসাকে আলাদা করবে? 

উ:- ঢেঁকি বা হলারমেশিন ব্যবহার করে চাল থেকে ধানের খোসাকে আলাদা করব ।

৬.২ ফুসফুস ভালাে রাখার উপায় কী কী? 

উ:-  ফুসফুস ভালো রাখার উপায় গুলি হল 

i ) নিয়মিত শ্বাস প্রশ্বাসের ব্যায়াম করতে হবে ।

ii ) ধোঁয়া ও ধুলোবালি থেকে দূরে থাকতে হবে ।

iii ) অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট জাতীয় খাবার যেমন- আঙ্গুর , আপেল , আনারস , খেতে হবে ।

৬.৩ কৃত্রিম উপগ্রহগুলি আমাদের দৈনন্দিন জীবনে কীভাবে সাহায্য করে?

উ:- কৃত্রিম উপগ্রহগুলি থেকে আমরা আবহাওয়ার পূর্বাভাস পাই । তাছাড়া মোবাইল এ কথা বলা , টি ভি দেখা ও রেডিও শোনার পেছনেও এদের ভূমিকা রয়ছে । 

৬.৪ ডােকরার পুতুল কীভাবে বানানাে হয়? 

উ:- মৌ – মোম আর ধুনোর ছাঁচে গলানো পিতল ঢেলে ডোকরার পুতুল বানানো হয় ।

৬.৫ আগেকার দিনের মানুষ নানা পশুকে পােষ মানিয়েছিল কেন?

উ:- আগেকার দিনের মানুষ নানা পশুকে পোষ মানিয়ে ছিল কারণ তারা বুঝতে পেরেছিল যে পশুকে পোষ মানালে অনেক সুবিধা আছে । সারা বছর ধরে মাংস , দুধ , ডিম আর চামড়া পাওয়া যাবে । এছাড়াও মানুষ আত্মরক্ষার জন্য কুকুরকে পোষ মানাতে শিখেছিল ।

৬.৬ অমাবস্যায় চাঁদকে দেখতে পাওয়া যায় না কেন? 

উ:- আমরা সবাই জানি , চাদের নিজের কোনো আলো নেই । সূর্যের আলোকে চাদ প্রতিফলন করে উজ্জ্বল হয় কিন্তু চাঁদ যেহেতু পৃথিবীর উপগ্রহ , তাই সে পৃথিবীর চারদিকেও ঘোরে । ফলে অমাবস্যার সময় যখন পৃথিবী আর সূর্যের মাঝে চাঁদ এসে দাঁড়ায় । এই মুহুর্তে চাঁদের কোনো অংশ থেকে আলো প্রতিফলিত হয়ে পৃথিবীতে আসে না । তাই অমাবস্যায় চাঁদকে দেখা যায় না ।

৭. দুটি বা তিনটি বাক্যে উত্তর দাও :

৭.১ “বর্তমানে বিভিন্ন প্রাণীর বাসস্থান বিপন্ন” – কেন এমন হচ্ছে বলে তােমার মনে হয়? 

উ:-  

১ ) মানুষ জঙ্গল সব কেটে ফেলছে । প্রাণীদের খাবার ও জলের অভাব দেখা দিচ্ছে ।

২ ) মানুষ জলাভূমি বন্ধ করে ফেলছে ।

৩ ) বর্তমানে ফসলের জমিতে প্রচুর সার ও কীটনাশক ব্যবহৃত হয় এর ফলে বহু পাখি ও প্রাণী মারা যাচ্ছে ।

৪ ) এছাড়া বিভিন্ন প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে প্রাণীদের বাসস্থান বিপন্ন হচ্ছে ।

৭.২ বিষাক্ত সাপ কামড়ালে সঙ্গে সঙ্গে কী কী করা উচিত বলে তােমার মনে হয়? 

উ:-  বিষাক্ত সাপ কামড়ালে 

১. বিষদাত লেগে থাকলে তা তুলে ফেলতে হবে ।

২. ক্ষতস্থান জল দিয়ে ভালো করে ধুতে হবে ।

৩. হাতের বাহুতে / পায়ের উরুতে বাঁধন দিতে হবে । তবে এক – দেড় ঘন্টা অন্তর বাঁধন খুলে আবার হালকা ভাবে বাঁধতে হবে ।

৪. দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যেতে হবে ।

৫. রোগীকে সাহস দিতে হবে ।

৬ রোগী বমি করতে চাইলে তা করতে দিতে হবে ।

৭. স্বাসকষ্ট হলে মুখে মুখ লাগিয়ে স্বাস দিতে হবে ।

৭.৩ “বাসস্থানের কাছাকাছি জল থাকলে সুবিধে” – বক্তব্যটির যথার্থতা ব্যাখ্যা করাে।

উ:-  বাসস্থানের কাছাকাছি জল থাকার সুবিধাঃ 

১ ) জলপথে আসা -যাওয়া করা যায় ।

২ ) মাছ চাষ ও মাছ ধরা যায় ।

৩ ) খুব সহজেই ক্ষেতের জলের প্রয়োজন মেটানো যায় ।

৪) তাছাড়াও রান্না করা , স্নান করা , কাপড় কাচা , ইত্যাদি কাজে প্রয়োজনীয় জলের যোগান পাওয়া যায় ।

 

Class 8 Model Activity Task

Compilation October New

নীচের বিষয় গুলিতে Click করে নতুন মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক গুলি লিখে নিতে পারবে

বাংলা

অংক

ইংরেজী

পরিবেশ ও বিজ্ঞান

স্বাস্থ্য ও শরীর শিক্ষা

ইতিহাস

ভূগোল


Leave a Comment