Class 9 History 2 Marks Suggestion 2022 with PDF Notes

Class 9 History 2 Marks Suggestion 2022 with PDF Notes নীচে প্রদান করা হল-

1.অঁসিয়া রেজিম বলতে কী বোঝ ?

উ:- আঁসিয়া রেজিম কথার অর্থ হল পূর্বতন সমাজ ব্যবস্থা । ১৭৮৯ খ্রিস্টাব্দের পূর্বে ফরাসি বিপ্লবের প্রাককালে ফ্রান্স তথা ইউরোপের বিভিন্ন দেশে যে বৈষম্যমূলক রাজনৈতিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক ব্যবস্থা প্রচলিত ছিল তাকে ‘অঁসিয়া রেজিম’ বা পুরাতনতন্ত্র বা old regime বলা হয়।

2.লেতর দ্য ক্যাশে কী ?

উঃ-লেতর দ্য কাশে হল একপ্রকার গ্রেপ্তারিপরোয়ানা যার সাহায্যে রাজ পুরুষেরা যেকোন ব্যক্তিকেই বিশেষ করে সাধারণ ব্যক্তিকে বিনা বিচারে কারাগারে বন্ধ করে রাখতে পারত; বাস্তিল দুর্গ এইসব নিরপরাধ বন্দিতে পূর্ণ হয়েগিয়েছিল। ফ্রান্সে আইনের চোখে সকলের সমান অধিকার ছিল না। বিচারকেরা ন্যায়বিচার অপেক্ষা নিজ স্বার্থসিদ্ধিতেই ব্যস্ত থাকতেন। বিচারব্যবস্থা ছিল প্রহসনের নামান্তর। আর এই জন্যই একজন বিশিষ্ট দার্শনিক ভলতেয়ার ফ্রান্সের এই সীমাহীন রাজনৈতিক সঙ্কটের কারণে ফ্রান্সকে রাজনৈতিক কারাগার বলে অভিহিত করেছেন।

3.ইনটেনডেন্ট নামে কারা পরিচিত ? বা ইনটেনডেন্ট  কারা?

উঃ- 1789 খ্রিস্টাব্দের পূর্বে ফরাসি রাজাদের দুর্বলতার সুযোগে ফ্রান্সের প্রাদেশিক শাসনকর্তাগণ ক্ষমতা অধিগ্রহণ করে সাধারণ মানুষের ওপর এরা নির্মর অত্যাচার ও শোষণ চালাতে থাকে। এই ক্ষমতালোভী অত্যাচারীরা ইনটেন্ডেন্টনামে পরিচিত। কর আদায় ও আর্থিক শোষণ এদের এমন পর্যায়ে পৌছেছিল যে ফরাসি জনগণ এদের ‘অর্থলোলুপ নেকড়ে’ বলে অভিহিত করেছিল।

4.‘দি স্পিরিট অব লজ’ বিখ্যাত কেন ?

উঃ- ‘স্পিরিট অফ দি লজ’ গ্রন্থটি রচনা করেছিলেন বিখ্যাত দার্শনিক মন্তেস্কু। ফরাসি বিপ্লবে যে সমস্ত দার্শনিকরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছিলেন তাদের মধ্যে তিনি ছিলেন একজন অন্যতম। তিনি ছিলেন ক্ষমতা স্বতন্ত্রীকরণ নীতির প্রবক্তা অর্থাৎ তাঁর মতে বিচার, আইন ও শাসন বিভাগ একজন ব্যক্তির হাতে কেন্দ্রীভূত হলে তিনি অবশ্যই স্বৈরাচারী হবেন আর এই জন্য তিনি তার ‘দ্য স্পিরিট অফ লজ’ গ্রন্থে ক্ষমতা আলাদা আলাদা রাখার কথা বলে ছিলেন।  

5. সামাজিক চুক্তি মতবাদ কী ?

উঃ- ‘The Social Contract’ (সামাজিক চুক্তি) গ্রন্থটি রচনা করেছিলেন বিখ্যাত দার্শনিক রুশো। এই গ্রন্থে তিনি বলেন যে, রাষ্ট্রের সার্বভৌম শক্তির উৎস হল সাধারণ মানুষ। সুতরাং রাজা যেহেতু জনগণের ইচ্ছা অনুযায়ী নির্বাচিত হয়েছেন সেহেতু রাজা জনগণের মঙ্গলের জন্য রাষ্ট্র পরিচালনা করবে আর তা না হলে সাধারণ মানুষের অধিকার রয়েছে তাঁকে ক্ষমতাচ্যুত করার। দার্শনিক রুশোর রচনার মাধ্যমে গণতান্ত্রিক ভাবধারার প্রকাশ ঘটেছিল। 

6.ফিজিওক্রাটস কাদের বলা হয় ?

উঃ- ফ্রান্সের ফিজিওক্র্যাট নামক দার্শনিকগণ ছিলেন ইংরেজ অর্থনীতিবিদ অ্যাডাম স্মিথের অনুগামী। তারা মার্কেন্টাইল মতবাদের বিরোধী ছিলেন। তারা অবাধ বাণিজ্য ও সার্বজনীন শিক্ষার সমর্থক ছিলেন। তাদের মতে, ভূমি কর ছাড়া অন্য কোনো কর থাকবে না। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন কুইসনে ও তুর্গো।

7.সাঁকুল্যাৎ কী ?

উঃ- ফ্রান্সের ভিটেমাটিহীন ভবঘুরে শ্রেণিকে সাঁকুল্যাৎ বলা হত। কুলোৎ’ কথার অর্থ হল যারা ব্রিচেস বা লম্বা মোজা পরে না। এই মোজা পরার ক্ষমতা ফ্রান্সের শহরগুলির দরিদ্র বাসিন্দাদের ছিল না। তাই তারা ব্যঙ্গ করে নিজেদেরকে কুল্যাৎ ছাড়া বা সাঁ কুল্যাৎ বলত। দিনমজুর, কুলি,মালি, গৃহভৃত্য, রাজমিস্ত্রি প্রমুখ ছিল সাঁ কুল্যাৎ শ্রেণিভুক্ত।

8.ব্রান্সউইক ঘোষণাপত্র কী ?

উঃ-প্রাশিয়ার সেনা প্রধান ব্রান্সউইক ফরাসি রাজতন্ত্র রক্ষার লক্ষে ২৫শে জুলাই, ১৭৯২ খ্রিস্টাব্দে এক ঘোষণাপত্র জারি করেন, যা ‘ব্রান্সউইক ঘোষণাপত্র’। এই ঘোষণাপত্রের দ্বারা তিনি হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, ফরাসি রাজপরিবারের ওপর আঘাত আসলে তিনি প্যারিস শহর ধ্বংস করে দেবেন।

Leave a Comment