নবম শ্রেণীর ইতিহাস দ্বিতীয় অধ্যায় 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর|বিপ্লবী আদর্শ নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ থেকে প্রশ্ন ও উত্তর

প্রিয় বন্ধুরা আজকে তোমাদের সঙ্গে এই পোস্টের মাধ্যমে আলোচনা করব নবম শ্রেণীর ইতিহাস দ্বিতীয় অধ্যায় 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর|বিপ্লবী আদর্শ নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ থেকে প্রশ্ন ও উত্তর|তো বন্ধুরা এছাড়াও তোমরা এই পোস্টের মাধ্যমে নবম শ্রেণীর ইতিহাস প্রশ্ন উত্তর |নবম শ্রেণীর ইতিহাস বড় প্রশ্ন |নবম শ্রেণীর দ্বিতীয় অধ্যায় ইতিহাস 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর|নবম শ্রেণীর বিপ্লবী আদর্শ নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ থেকে প্রশ্ন উত্তর|পশ্চিমবঙ্গ বোর্ড প্রশ্ন উত্তর |WBBSE Class 9 Question And Answers|Class ix প্রশ্ন উত্তর|ক্লাস নাইন প্রশ্ন উত্তর পিডিএফ|তো বন্ধুরা তোমরা যারা ইন্টারনেটে নবম শ্রেণীর ইতিহাস দ্বিতীয় অধ্যায় 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর বিপ্লবী আদর্শ নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ থেকে প্রশ্ন ও উত্তর সন্ধান করছ তাদের আর সন্ধান করার প্রয়োজন নেই তোমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে সমস্ত 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর পেয়ে যাবে।

নবম শ্রেণীর ইতিহাস দ্বিতীয় অধ্যায় 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর|বিপ্লবী আদর্শ নেপোলিয়নীয় সাম্রাজ্য ও জাতীয়তাবাদ থেকে প্রশ্ন ও উত্তর

‘ডাইরেক্টরি শাসন’ কী ?

1794 খ্রিস্টাব্দে ফ্রান্সে সন্ত্রাসের রাজত্ব শেষ হলে ‘জাতীয় মহাসভা ফ্রান্সের শাসনভার 5 জন প্রতিনিধি বা ডাইরেক্টরের হাতে তুলে দেয়। এই শাসন 1799 পর্যন্ত টিকে ছিল। একেই বলা হয় ডাইরেক্টরি শাসন।

কবে, কাদের মধ্যে ক্যাম্পাে ফোর্মিয়াে সন্ধি স্বাক্ষরিত করে ?

1797 খ্রিস্টাব্দে অস্ট্রিয়ার রাজা (প্রথম ফ্রান্সিস) ও ফরাসি সম্রাট নেপােলিয়নের মধ্যে ক্যাম্পাে ফোর্মিয়ে সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়।

নীলনদের যুদ্ধ কবে হয় ? এই যুদ্ধের ফল কী হয়েছিল ?

1798 খ্রিস্টাব্দে নীলনদের যুদ্ধ হয়। এই যুদ্ধে নেপােলিয়ন ইংল্যান্ডের কাছে (সেনাপতি নেলসনের নিকট) পরাজিত হয়েছিলেন।

ফ্রান্সে কবে, কীভাবে প্রথম রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় ?

1804 খ্রিস্টাব্দে ফরাসি সিনেটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ফ্রান্সে গণভােট হয়। সেই ভােটে নেপােলিয়ন ফরাসি সম্রাট নির্বাচিত হন। এইভাবে ফ্রান্সে প্রথম রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়।

‘অষ্টম বর্ষের সংবিধান’ বা ‘কনস্যুলেট সংবিধান বলতে কী বােঝাে? 

ডাইরেক্টরি শাসন উচ্ছেদের পর নেপােলিয়ন ফ্রান্সের জন্য একটি সংবিধান রচনা করেন। একেই বলা হয় অষ্টম বর্ষের সংবিধান। এই সংবিধান 1799-1804 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত টিকেছিল।

কনস্যুলেটতন্ত্র বা কনস্যুলেট শাসন কী ?

নেপােলিয়ন বােনাপার্ট 1799 খ্রিস্টাব্দের ৩ নভেম্বর ডাইরেক্টরি শাসনের অবসান ঘটিয়ে ফ্রান্সে যে শাসনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করেন তাকেই বলা হয় কনস্যুলেটতন্ত্র বা কনস্যুলেট শাসন। এই শাসনে ফ্রান্সের শাসনভার তিনজন কনসালের হাতে তুলে দেওয়া হয়। নেপােলিয়ন ছিলেন প্রথম কনসাল। তিনিই ছিলেন প্রকৃত শাসন ক্ষমতার অধিকারী।

কবে, কাদের মধ্যে এবং কেন টিলসিটের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয় ?

1807 খ্রিস্টাব্দে ফ্রিডল্যান্ডের যুদ্ধে রাশিয়া ফ্রান্সের কাছে পরাজিত হলে টিলসিটের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল ফরাসি সম্রাট নেপােলিয়নের সঙ্গে রাশিয়ার জার প্রথম আলেকজান্ডারের মধ্যে।

তৃতীয় বর্ষের সংবিধান কী ?

1795 খ্রিস্টাব্দে যে সংবিধান অনুসারে ফ্রান্সে ডাইরেক্টরি শাসনের সূচনা হয় তাকে বলা হয় তৃতীয় বর্ষের সংবিধান।

কোন্ সময়কে কেন নেপােলিয়ন যুগ বলা হয় ? 

1799-1814 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত সময়কালকে বলা হয় নেপােলিয়নের যুগ। কারণ এই সময় ফ্রান্স তথা ইউরােপের ইংল্যান্ড বাদে সবকিছুই নিয়ন্ত্রিত হত সম্রাট নেপােলিয়নের অঙ্গুলি হেলনে।

নেপােলিয়নকে ফরাসি ‘বিপ্লবের সন্তান’ কেন বলা হয় ? 

নেপােলিয়নকে বলা হয় ফরাসি বিপ্লবের শ্রেষ্ঠ সন্তান কারণ ফরাসি বিপ্লবের পর তিনিই ফ্রান্স তথা তাঁর সাম্রাজ্যে বিপ্লবের মহান দুই আদর্শ ‘সাম্য ও মৈত্রী’-র আদর্শ অনুসরণ করেন।

কেন নেপােলিয়নকে বলা হয় বিপ্লবের ধ্বংসকারী ? 

নেপােলিয়নকে বলা হয় বিপ্লবের ধ্বংসকারী, কারণ তিনি ফরাসি বিপ্লবের মহান আদর্শ স্বাধীনতাকে কুক্ষিগত করে ফরাসিদের ব্যক্তি স্বাধীনতা, বাক স্বাধীনতা ইত্যাদি খর্ব করেছিলেন।

‘কোড নেপােলিয়ন’ বা ‘নেপােলিয়নের আইন সংহিতা কী ? 

1807 খ্রিস্টাব্দে নেপােলিয়ন 2287টি দেওয়ানি, ফৌজদারি ও বাণিজ্যিক বিধি নিয়ে যে ফরাসি আইন সংহিতার প্রচলন করেন তাকেই বলে ‘কোড নেপােলিয়ন’।

কাকে কেন ‘দ্বিতীয় জাস্টিনিয়ান’ বলা হয় ?

নেপােলিয়নের আইনসংহিতা গড়ে উঠেছিল মূলত প্রাকৃতিক আইন ও রােমান আইনের সংমিশ্রণে। এজন্য কোড নেপােলিয়ন এতটাই জনপ্রিয়তা লাভ করেছিল যে, তা ফ্রান্সের বাইরে ইউরােপের অন্যান্য দেশেও গৃহীত হয়। এজন্য ঐতিহাসিক ফিশার নেপােলিয়নকে ‘দ্বিতীয় জাস্টিনিয়ান’ বলে অভিহিত করেছেন।

চতুর্থ রাষ্ট্রজোট বলতে কী বােঝাে?

নেপােলিয়ন তথা ফ্রান্সের আগ্রাসন প্রতিরােধ করার জন্য রাশিয়ার জার প্রথম আলেকজান্ডার 1813 খ্রিস্টাব্দে ইংল্যান্ড, অস্ট্রিয়া, প্রাশিয়া ও সুইডেনকে নিয়ে যে-শক্তিজোট গড়ে তােলেন, তাকেই বলা হয় চতুর্থ রাষ্ট্রজোট বা চতুর্থ ইউরােপীয় শক্তিজোট।

‘কিংডম অভ ওয়েস্টফেলিয়া’ কী? ‘

নেপােলিয়ন জার্মানির হ্যানােভার, স্যাক্সনি প্রভৃতি রাজ্য নিয়ে যে রাষ্ট্র-সমবায় গড়ে তােলেন তাকেই বলা হয় কিংডম অভ ওয়েস্টফেলিয়া’। এই রাষ্ট্র-সমবায়ের শাসনভার লাভ করেন নেপােলিয়নের ছোেটা ভাই জেরােম ।

ধর্ম মীমাংসা চুক্তি বা কনকরাট অভ 1801 কী ?

1801 খ্রিস্টাব্দে সম্রাট নেপােলিয়ন পােপ সপ্তম পায়াসের সঙ্গে ধর্ম সংক্রান্ত যে-চুক্তি করেন, তাকে বলা হয় কনকরাট অভ 1801’। এই চুক্তি দ্বারা পােপ গির্জার সম্পত্তি জাতীয়করণের বিষয় মেনে নেন। ঠিক হয় সম্রাট যাজকদের মনােনীত করবেন ও তাঁদের বেতন দেবেন ইত্যাদি।

সিজালপাইন প্রজাতন্ত্র কী?

ফরাসি প্রজাতন্ত্র 1791 খ্রিস্টাব্দে ইটালিতে যে প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিল তাকেই বলা হয় সিজালপাইন রিপাবলিক বা সিজালপাইন প্রজাতন্ত্র। 1805 খ্রিস্টাব্দে এটি ‘ইতালীয় রাজ্য’ নামে পরিচিত হয়।

‘গ্র্যান্ড ডাচি অভ ওয়ারশ’ কী ?

সম্রাট নেপােলিয়ন প্রাশিয়ার অধীনস্থ পােল্যান্ড ও রাশিয়ার অংশবিশেষে যে রাষ্ট্র-সমবায় গড়ে তােলেন। তাকেই বলা হয় ‘কিংডম অভ ওয়ারশ’। এর দায়িত্বভার পান স্যাক্সনির রাজা।

কনফেডারেশন অভ দ্য রাইন’ বা ‘রাইনের রাষ্ট্রসংঘ’ কী ?

সম্রাট নেপােলিয়ন জার্মানি জয় করার পর সমগ্র জার্মানিকে 39টি রাজ্যে বিভক্ত করে। 1806 খ্রিস্টাব্দে 28টি রাজ্য নিয়ে যে রাষ্ট্রসংঘ গড়ে তােলেন, তাকেই বলা হয় কনফেডারেশন অভ দ্য রাইন’ বা ‘রাইনের রাষ্ট্রসংঘ’।

বার্লিন ডিক্রি’ কী ?

1806 খ্রিস্টাব্দে নেপােলিয়ন যে ডিক্রি দ্বারা ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ‘মহাদেশীয় অবরােধ প্রথা চালু করেন তাকেই বলা হয় বার্লিন ডিক্রি। এই ডিক্রি দ্বারা বলা হয়-ইংল্যান্ডের কোনাে পণ্যবাহী জাহাজ ফ্রান্স অথবা ইউরােপের কোনাে বন্দরে প্রবেশ করতে পারবে না। যদি তা হয় তাহলে ফ্রান্স সেই জাহাজ বাজেয়াপ্ত করবে।

মহাদেশীয় অবরােধ প্রথা বা কন্টিনেন্টাল সিস্টেম কী ?

ইংল্যান্ডের বাণিজ্য ও অর্থনীতি দুর্বল করার জন্য সম্রাট নেপােলিয়ন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে 1806 খ্রিস্টাব্দে বার্লিন ডিক্রি দ্বারা যে অর্থনৈতিক অবরােধ শুরু করেন, তাকে বলা হয় ‘মহাদেশীয় অবরােধ প্রথা। এই ব্যবস্থা 1813 খ্রিস্টাব্দ পর্যন্ত টিকেছিল।

অর্ডার্স-ইন-কাউন্সিল’ কী ? 

1806 খ্রিস্টাব্দে বার্লিন ডিক্রি দ্বারা নেপােলিয়ন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে মহাদেশীয় অবরােধ শুরু করলে ইংল্যান্ড প্রত্যুত্তরে 1807 খ্রিস্টাব্দে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যে পালটা অবরােধ জারি করে, তাকেই বলা হয় ‘অর্ডার্স-ইন-কাউন্সিল।

উপদ্বীপের যুদ্ধ’ কী ?

সম্রাট নেপােলিয়ন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে 1806 খ্রিস্টাব্দে মহাদেশীয় অবরােধ প্রথা শুরু করেন। কিন্তু স্পেন ও পাের্তুগাল এই অবরােধ মানতে অস্বীকার করে। ফলে শীঘ্রই যুদ্ধ শুরু হয়। ইংল্যান্ড, স্পেন ও পাের্তুগাল মিলিত হয়ে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যে যুদ্ধ (1808-1813 খ্রিস্টাব্দ) করে তাকে বলে ‘পেনিনসুলার ওয়ার’ বা ‘উপদ্বীপের যুদ্ধ বলা হয়।

স্পেনের ক্ষত’ বা ‘স্পেনীয় ক্ষত’ কাকে বলে ?

ম্পেন মহাদেশীয় অবরােধ প্রথা মানতে অস্বীকার করলে নেপােলিয়ন স্পেন আক্রমণ করে স্পেনের সিংহাসনে নিজ ভাই জোসেফকে বসিয়ে দেন। কিন্তু স্বাধীনচেতা স্পেনবাসী তাঁর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায়। শুরু হয় মুক্তি সংগ্রাম। সেই সংগ্রামে নেপােলিয়নের পরাজয় হয়। স্পেনের বিরুদ্ধে এই ব্যর্থতাকেই বলা হয় ‘স্পেনের ক্ষত’ বা ‘স্পেনীয় ক্ষত। কারণ এই ক্ষতই নেপােলিয়নের পতনের পথ ত্বরান্বিত করেছিল।

100 দিনের রাজত্ব’ বলতে কী বােঝাে ? 

1813 খ্রিস্টাব্দে লিপজিগের যুদ্ধ বা জাতিসমূহের যুদ্ধে নেপােলিয়ন পরাজিত হলে তাঁকে এলবা দ্বীপে নির্বাসন দেওয়া হয়। কিন্তু তিনি পুনরায় 1815 খ্রিস্টাব্দে ফরাসি সাম্রাজ্য দখল করেন এবং টানা 100 দিন রাজত্ব করেন প্রায় 1815 খ্রিষ্টাব্দের 20 মার্চ থেকে 29 জুন পর্যন্ত। এজন্য এই অধ্যায় ফ্রান্সের ইতিহাসে 100 দিনের রাজত্ব’ বা শত দিনের রাজত্ব নামে পরিচিত।

ট্রাফালগারের যুদ্ধ কত খ্রিস্টাব্দে এবং কাদের মধ্যে হয়েছিল?

1805 ট্রাফালগারের যুদ্ধ হয়েছিল। এই যুদ্ধ হয়েছিল ইংল্যান্ড ও ফ্রান্সের মধ্যে। এই যুদ্ধে ইংরেজ সেনাপতি অ্যাডমিন নেলসন নেপোলিয়ন বাহিনীকে পরাজিত করেছিলেন।

পোড়ামাটি নীতি কি?

পোড়ামাটি নীতি হল এক ধরনের রণকৌশল। আক্রমনকারী সৈন্যরা যাতে আক্রান্ত দেশের জিনিসপত্র ব্যবহার করতে না পারে তার জন্য আক্রান্ত দেশের সৈন্যরা নিজেদের জিনিসপত্র নিজেরাই পুড়িয়ে ধ্বংস করে দিত। 1812 খ্রিস্টাব্দে নেপোলিয়ন যখন রাশিয়া আক্রমণ করেছিল তখন রাশিয়ার সৈন্যরা যুদ্ধ না করে পিছিয়ে গিয়ে খাদ্য শস্য ভান্ডার গুলিতে আগুন জ্বালিয়ে দেয়, পানীয় জলের বিষ মিশিয়ে দেয় এবং যোগাযোগ ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়ে শত্রুপক্ষের অগ্রগতি ব্যাহত করে। এই কৌশলটিকে পোড়ামাটি নীতি বলা হয়।

ওয়াটারলুর যুদ্ধ কত খ্রিস্টাব্দে কাদের মধ্যে হয়েছিল?

1815 খ্রিস্টাব্দে ওয়াটারলুর যুদ্ধ হয়েছিল। এই যুদ্ধ হয়েছিল নেপোলিয়ন ইউরোপের সম্মিলিত শক্তিবর্গের মধ্যে। এই যুদ্ধে ব্রিটিশ সেনাপতি ডিউক অব ওয়েলিংটন ও রাশিয়ার সেনাপতি ব্লুকারের হাতে নেপোলিয়ন নিহত হয় এবং নেপোলিয়নকে সেন্ট হেলেনা দ্বীপে নির্বাসিত করা হয়।

File Details
File Name/Book Nameনবম শ্রেণীর ইতিহাস দ্বিতীয় অধ্যায় 2 নম্বরের প্রশ্ন উত্তর
File FormatPDF
File LanguageBengali
File Size173 KB
File LocationGOOGLE DRIVE
Download LinkClick Here to Download PDF File
Join Telegram Members

Leave a Comment