ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক অর্থনৈতিক রাজনৈতিক কারন গুলি আলোচনা

প্রিয় নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থীরা,

আজকে তোমাদের সঙ্গে শেয়ার করব ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক অর্থনৈতিক রাজনৈতিক কারন গুলি আলোচনা তোমরা এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক থেকে ১ নম্বরের প্রশ্নোত্তর| এছাড়া থেকে সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন ও উত্তর | অতিসংক্ষিপ্ত প্রশ্ন উত্তর | টিকা লেখ | রচনাধর্মী প্রশ্ন ও উত্তর | প্রশ্ন উত্তর পেয়ে যাবে | তো বন্ধুরা ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক কারন গুলি আলোচনা কর | ফরাসি বিপ্লবের কয়েকটি দিক|ফরাসি বিপ্লবের অর্থনৈতিক কারন গুলি আলোচনা কর।|ফরাসি বিপ্লবের রাজনৈতিক কারন গুলি আলোচনা কর।|Class 9 History 1 Mark Question and Answers|এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে তোমরা ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক কারন সম্পর্কে আলোচনা পেয়ে যাবে |বন্ধুরা আমাদের আশা এই প্রশ্নগুলি তোমাদের আসন্ন পরীক্ষায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ হবে

ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক|অর্থনৈতিক|রাজনৈতিক |কারন গুলি আলোচনা

ভুমিকাঃ ১৭৮৯ সালের বিপ্লব অর্থাৎ ফরাসি বিপ্লব শুধু ফ্রান্সের ইতিহাসে নয় সমগ্র বিশ্বের ইতিহাসে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা। ফরাসি বিপ্লবের পিছনে ছিল দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত নানা অভাব অভিযোগ। ঐতিহাসিক লেফেভরের-এর মতে, ফরাসি বিপ্লবের উৎস অনুসন্ধান করতে হবে তার অতীত ইতিহাসের মধ্যে। যাইহোক ফরাসি বিপ্লবের পিছনে যে কারণ গুলি দায়ী ছিল সেগুলি হল –

ফরাসি বিপ্লবের রাজনৈতিক কারন গুলি আলোচনা

ক) রাজনৈতিক কারনঃ

১) রাজাদের দুর্বল শাসন : ফরাসি রাজা চতুর্দশ লুই(১৬৪৩-১৭১৫ খ্রীঃ) অত্যন্ত বিলাস ব্যসনে মগ্ন থেকে স্বৈরাচারী ক্ষমতার মাধ্যমে শাসনকার্য পরিচালনা করতেন। তিনি স্বৈরাচারী ছিলেন যে, তিনি বলতেন “আমিই রাট্র”( I am the state)। তার পরের রাজা পঞ্চদশ লুই (১৭১৫-১৭৭৪ খ্রীঃ) তিনি ছিলেন অত্যন্ত বিলাসী অলস ও পরিশ্রমবিমুখ। পঞ্চদশ লুই এর পরবর্তী ফরাসি রাজা ছিলেন দুর্বল চিত্ত ষোড়শ লুই(১৭৭৪-১৭৯৩ খ্রীঃ)। ষোড়শ লুই এর আমলে রাজতন্ত্র অবক্ষয়ের শেষ সীমায় পৌছায়। তার পক্ষে রাজশক্তির পতন রোধ করা সম্ভব হয়নি।

২) দুর্নীতিগ্রস্ত প্রশাসন: রাজ শক্তি তথা রাজাদের এই দূর্বলতার সুযোগে শাসন কার্য সম্পূর্ণভাবে অভিজাতদের হাতে চলে যায়। অভিজাত শ্রেণী আবার শাসনকার্য পরিচালনা করত ইনটেনডেন্ট নামক কর্মচারীদের দ্বারা।ইনটেনডেন্ট ছিল স্বৈরাচারী ও দুর্নীতিগ্রস্থ। তারা নিজ স্বার্থ সিদ্ধির জন্য চরম অত্যাচারী হয়ে ওঠে এবং জনসাধারণ তাদের অমানবিক অত্যাচার এর জন্য “অর্থলোলুপ নেকড়ে” উপাধিতে ভূষিত করে। ‘লেতর দ্য ক্যাশে নামক’ এক প্রকার গ্রেফতারি পরোয়ানার সাহায়্যে তারা যেকোন সাধারণ মানুষকে বিনা বিচারে অত্যাচারের প্রতীক বাস্তিল দুর্গে বন্দি করে রাখত। ফলে বাস্তিল দুর্গ নিরপরাধ বন্দিতে পূর্ণ হয়ে যায়।

ফরাসি বিপ্লবের সামাজিক কারন গুলি আলোচনা

খ) সামাজিক কারন ফরাসি বিপ্লবের অন্যতম কারণ হলো ফ্রান্সের শ্রেণীবিভক্ত সমাজ ব্যবস্থা, সমগ্র ফরাসি সমাজ তিনটি প্রধান শ্রেণীতে বিভক্ত ছিল যথা যাজক,অভিজাত ও সাধারণ মানুষ।

১) যাজক বা প্রথম শ্রেণীঃ ফরাসি সমাজে প্রথমশ্রেণী ভুক্ত ছিল যাজকরা। এরা ছিল বিশেষ সুবিধাভোগী এবং রাষ্ট্রের সব রকম সুযোগ-সুবিধা এরা ভোগ করত। এই সুবিধাভোগী যাজকরা ফ্রান্সের মোট জনসংখ্যার ১ শতাংশ; যা সংখ্যায় ছিল  ২ লক্ষ ২০ হাজার। এরা বিভিন্ন রকম কর আদায় করলেও নিজে কোন কর দিতনা 

২) দ্বিতীয় শ্রেণীর : ফরাসি সমাজে দ্বিতীয় শ্রেণী ভুক্ত ছিল অভিজাতরা। এরা ছিল ফ্রান্সের মোট জনসংখ্যার ১.৫ শতাংশ যা ছিল সংখ্যায় ৩ লক্ষ ৫০ হাজার। ফ্রান্সের মোট জমির ২০ শতাংশ ছিল এদের দখলেএরা জমির জন্য সরকারকে কোন প্রত্যক্ষ কর দিতনা আবার সরকারের বিভিন্ন উচ্চপদগুলি এরাই ভোগ করত। 

 ৩) তৃতীয় শ্রেণি: ফরাসি সমাজের সবচেয়ে নিচের স্তরে ছিল তৃতীয় সম্প্রদায়। এই তৃতীয় সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত ছিল বিভিন্ন প্রকার ব্যবসায়ী কৃষক শ্রমিক বুদ্ধিজিবী প্রভৃতি সম্প্রদায়ের মানুষেরা। ফ্রান্সের মোট জনসংখ্যার এরা ছিল ৯৬-৯৭ শতাংশ। এরা ছিল অসাম্যের শিকার, সমাজে এদের কোন মর্যদা ছিলনা সমস্ত রকমের কর এই তৃতীয় শ্রেনীকে দিতে হত। এরা নানা রকম শোষন সহ্য না করতে পেরে শেষ পর্যন্ত বিপ্লবের পথ বেছে নিয়েছিল।

ফরাসি বিপ্লবের অর্থনৈতিক কারন গুলি আলোচনা

গ) অর্থনৈতিক কারণঃ শূন্য রাজকোষ ফ্রান্সের আর্থিক দুরবস্থা বিপ্লবের জন্য অনেকাংশেই দায়ী ছিল

১) বৈষম্যমূলক কর ব্যবস্থাঃ ফ্রান্সের প্রথম দুই সম্প্রদায় অর্থাৎ যাজক ও অভিযাজরা বেশিরভাগ ভূ সম্পত্তি ভোগ করলেও তাদের কর দিতে হতো না। কিন্তু অপরপক্ষে সরকারের মোট রাজস্বের ৯৬ শতাংশ  দিতে হত তৃতীয় সম্প্রদায়কে। বিভিন্ন ধরনের কর প্রদানের পর তাদের হাতে মাত্র ২০ শতাংশ অর্থাৎ পাঁচ ভাগের এক ভাগ অবশিষ্ট থাকতো। এই অত্যাধিক করের বোঝা তৃতীয় সম্প্রদায়কে বিদ্রোহী করে তুলেছিল। এছাড়াও দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি  রাজার আরোও কর আরোপের চেষ্টা এবং সর্বোপরি ব্যয়বহুল যুদ্ধ ফ্রান্সকে অর্থনৈতিক দিক থেকে শেষ করে দিয়েছিল। যার ফলে সাধারণ মানুষ শেষ পর্যন্ত বিদ্রোহের পথ বেছে নিয়েছিল।

উপসংহারঃ- উপরোক্ত আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বলতে পারি যে, ১৭৮৯ সালে ফ্রান্সে যে বিপ্লব হয়েছিল তা ছিল মূলত দীর্ঘদিনের সামাজিক,অর্থনৈতিক রাজনৈতিকভাবে অত্যাচারিত তৃতীয় সম্প্রদায়ের এক বলিষ্ঠ প্রতিবাদ।

File Details
File Name/Book Nameফরাসি বিপ্লবের সামাজিক অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক কারন গুলি আলোচনা কর
File FormatPDF
File LanguageBengali
File Size76 kb
File LocationGOOGLE DRIVE
Download LinkClick Here to Download PDF File
Join Telegram Members

Leave a Comment