টীকা লেখঃ- মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তি

প্রিয় বন্ধুরা আজকে আমি মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তি সম্পর্কে আলোচনা করব, উচ্চমাধ্যমিক দর্শন চতুর্থ অধ্যায় (আরোহমূলক দোষ)|মন্দ উপমা যুক্তি কি?|দুষ্ট উপমা যুক্তি কি?|মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তির উদাহরণ| মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তির ব্যাখ্যাসহ উদাহরণ|টীকা লেখঃ- মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তি|Higher Secondary Philosophy 4th chapter|দ্বাদশ শ্রেণি চতুর্থ অধ্যায় থেকে মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তি প্রশ্নের উত্তর তোমরা নিচে PDF আকারে পেয়ে যাবে 

মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তি কাকে বলে?

মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তিঃ- দুই বা ততোধিক বস্তুর মধ্যে কয়েকটি বিষয়ে সাদৃশ্য দেখে এবং সেই সাদৃশ্যের ভিত্তিতে যখন তাদের মধ্যে অপর কোনো নতুন সাদৃশ্যের অস্তিত্ব অনুমান করা হয় তখন তাকে বলা হয় উপমা যুক্তি।

                    যে উপমা যুক্তি তে দুটি বিষয়ের সাদৃশ্য অপ্রাসঙ্গিক ও কম গুরুত্বপূর্ণ তাকে মন্দ উপমা যুক্তি বলে। 

মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তির উদাহরণঃ

উদাহরণঃ-  কুকুরের চারটি পা আছে 

কুকুর কামড়াতে পারে 

সুতরাং চালাতে পারবে 

মন্দ উপমা যুক্তি বা দুষ্ট উপমা যুক্তির ব্যাখ্যাঃ 

ব্যাখ্যাঃ- এই আরোহ যুক্তিটিকে কুকুর ও চেয়ার এর মধ্যে চারটি পায়ের সাদৃশ্যের ভিত্তিতে চেয়ার কামড়াতে পারবে’- এইরূপ অনুমান নিছক কাল্পনিক ও গুরুত্বহীন। কারণ চারটি পা ছাড়া অন্যান্য সব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কুকুর ও চেয়ার এর মধ্যে বৈসাদৃশ্য আছে। সজীব প্রাণী বলে সে ক্ষেত্রে কামড়াতে পাড়া ব্যাপারটি স্বাভাবিক, কিন্তু চেয়ার নির্জীব বস্তু বলে সে ক্ষেত্রে কামড়াতে করার ব্যাপারটি স্বাভাবিক নয়। কাজেই এটি একটি মন্দ উপমা যুক্তি। 

১)উপমাযুক্তি বা সাদৃশ্যমূলক আরোহ অনুমান কাকে বলে?

২) কারনের পরিমানগত লক্ষন সম্পর্কে আলোচনা কর

৩) বৈজ্ঞানিক আরোহ অনুমান কাকে বলে? বৈজ্ঞানিক আরোহ অনুমানের বৈশিষ্ট্য গুলি কি কি? বৈজ্ঞানিক আরোহ অনুমান এর উদাহরণ দাওবৈজ্ঞানিক ও অবৈজ্ঞানিক আরোহ অনুমানের মধ্যে পার্থক্য লিখ

৪)দ্বাদশ শ্রেণী আরোহ দর্শনের প্রথম অধ্যায় প্রশ্ন ও উত্তর।আরোহ অনুমানের স্বরূপ প্রশ্ন ও উত্তর

৫) দৃষ্টান্তসহ আবশ্যিক শর্ত, পর্যাপ্ত শর্ত এবং আবশ্যিক পর্যাপ্ত শর্ত ব্যাখ্যা করো

৬)কারণ কাকে বলে? কারণের গুণগত ও পরিমাণগত লক্ষণ আলোচনা করো


Join Telegram Members

Leave a Comment