ভারতবর্ষের ইতিহাস- ভৌগোলিক পরিবেশ- প্রত্নতত্ত্ব প্রাগৈতিহাসিক ভারতবর্ষ- প্রাচীন ভারতের ইতিহাসের উপাদান ও মেহেরগড় সভ্যতা

বন্ধুরা আজকে তোমাদের সঙ্গে ভারতবর্ষের ইতিহাস- ভৌগোলিক পরিবেশ- প্রত্নতত্ত্ব প্রাগৈতিহাসিক ভারতবর্ষ- প্রাচীন ভারতের ইতিহাসের উপাদান ও মেহেরগড় সভ্যতা আলোচনা করব|(Indian History- Geographical Environment Archaeology- Pre- historic India- Sources of Ancient Indian History and the Mehergarh Civilization) সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা পেয়ে যাবে।

(Indian History- Geographical Environment Archaeology- Pre- historic India- Sources of Ancient Indian History and the Mehergarh Civilization)

ভারতবর্ষ: আমাদের পরমপ্রিয় মাতৃভূমি ‘ভারতবর্ষ’ বিশ্বের এক প্রাচীনতম দেশ। এই ভারতবর্ষ নামকরণের উদ্ভব নিয়ে বিভিন্ন মত প্রচলিত আছে। এব্যাপারে প্রচলিত গুরুত্বপূর্ণ মতগুলি হল—

প্রাচীনকালে পৌরাণিক রাজা দুষ্মন্তের পুত্র ভরত নামে এক রাজা এদেশে রাজত্ব করতেন। তাঁর নামানুসারে এই দেশের নাম হয় ‘ভারতবর্ষ’।

ঐতিহাসিক ড. রামশরণ শর্মা বলেন যে, ভরত নামে এক প্রাচীন উপজাতির নামানুসারে এই দেশের নাম হয় ভারতবর্ষ এবং ভারতবর্ষের মানুষের নাম ভরতসন্তুতি বা ভারতের উত্তর -পুরুষ’।

খ্রিস্টপূর্ব পঞ্চম শতকের প্রখ্যাত গ্রিক পণ্ডিত হেরোডোটাস তাঁর হিস্ট্রি গ্রন্থে ‘ইন্দোই’ শব্দের উল্লেখ করেছেন। অবশ্য এই ‘ইন্দোই’-এর অবস্থান ছিল তখন সিন্ধুনদের ওপরে অর্থাৎ বর্তমানকালের সিন্ধু প্রদেশ। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গ্রিক লেখক মেগাস্থিনিস খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকের শেষার্ধে তাঁর ইন্ডিকায়’ পলিবোথরা (পাটলিপুত্র) ও প্রাসিঅয় (প্রাচ্যদেশ) এবং সুদূর দক্ষিণের পাণ্ড্য দেশকেও ‘ইন্দোই’ (ইন্ডিয়া/ইন্দিয়া)-এর অন্তর্ভুক্ত করেছেন। অর্থাৎ তিনি ইন্দোই বা ইন্ডিয়া বলতে সমগ্র ভারতীয় উপমহাদেশকে বুঝিয়েছেন।

ভারতবর্ষ প্রসঙ্গে ‘ইন্দোই’ ছাড়াও ‘হিন্দু’ বা ‘সিন্ধু’ নামের উল্লেখ পাওয়া যায়। পারস্যের আকিমেনীয় বংশের শাসক প্রথম দরায়ুস-এর নক্স-ই-রুস্তম লেখতে তাঁর শাসনাধীন প্রদেশ হিসাবে ‘হিন্দু’ (সিন্ধুর) নামোল্লেখ আছে, যার বর্তমান অবস্থান সিন্ধুপ্রদেশ। আর প্রাচীন পারসিকরা এই সিন্ধুকে উচ্চারণ করত ‘হিন্দু’। এ থেকেই সে যুগে ভারতীয়দের সাধারণ নাম হয় ‘হিন্দু’ এবং কালক্রমে এদেশের নাম হয় ‘হিন্দুস্তান’ বা হিন্দুদের বাসভূমি। গ্রিক ও রোমানরা ‘হিন্দু’কে উচ্চারণ করত ‘ইন্দুস’ (Indus) বলে। প্রাচীন এই ‘ইন্দুস’ থেকেই আধুনিক ইন্ডিয়া’ নামের উৎপত্তি।

মৌর্য আমলে সমগ্র ভারতীয় উপমহাদেশ সম্ভবত পরিচিত ছিল ‘জম্বুদ্বীপ’ নামে। অশোকের প্রথম অপ্রধান শিলালেখতে তাঁর সুবিশাল সাম্রাজ্যকে ওই নামে উল্লেখ করা হয়েছে। আবার মহাভারতের এক জায়গায় জম্বুদ্বীপ চারটি মহাদেশ সূচক দ্বীপের

একটি এবং এর একটি বর্ষ বা অংশের নাম ভারতবর্ষ বলে অভিহিত হয়েছে। ভারতবর্ষের অবস্থানের বর্ণনা রয়েছে বিষ্ণুপুরাণে। এর একটি শ্লোকে বলা হয়েছে, সমুদ্রের উত্তরে এবং হিমালয়ের দক্ষিণে অবস্থিত যে দেশ তার নাম ভারত এবং এর অধিবাসীদের বলা হয় ‘ভরত-সন্ততি’

Leave a Comment